Saturday 28th November 2020
আজ শনিবার | ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

উগ্রবাদ সহিংসতা প্রতিরোধে সাংবাদিকদের ভুমিকা র্শীষক’ চকরিয়ায় ইপসা সিভিক-নোঙ্গরের সেমিনার

নিজস্ব সংবাদদাতা

বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট ২০২০ | ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ

উগ্রবাদ সহিংসতা প্রতিরোধে সাংবাদিকদের ভুমিকা র্শীষক’ চকরিয়ায় ইপসা সিভিক-নোঙ্গরের সেমিনার
Spread the love

ধর্মীয় উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোকল্পে সামাজিক আন্দোলন জোরদারে সাংবাদিকদের ভুমিকা র্শীষক এনজিও নোঙ্গর কক্সবাজার) এর আয়োজনে চকরিয়া উপজেলার কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইপসা সিভিক কনসোর্টিয়াম প্রকল্পের সহযোগিতায় ও জিসার্ক এর অর্থায়নে বুধবার ২৬ আগস্ট দুপুরে চকরিয়া পৌরসদরে অভিজাত রেস্তোরা রেডচিলির সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রকল্পের উদ্দেশ্য ও অগ্রগতি নিয়ে বক্তব্য দেন প্রধান আলোচক সিভিক প্রকল্পের টিম লিডার ও ইপসার হেড অব রিজিওনাল এবং ডেপুটি পরিচালক খালেদা বেগম।
অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক সিভিক প্রকল্পের টিম লিডার খালেদা বেগম বলেন, ধর্মীয় উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধকল্পে তরুণ নেতৃত্বের বিকল্প নেই। একমাত্র তরুণরাই পারে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের ভয়াবহতা থেকে সমাজ তথা দেশকে রক্ষা করতে। সেইজন্য আমরা প্রকল্পের উদ্যোগে চকরিয়া উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকায় মাধ্যমিকস্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোতে সচেনতামুলক কর্মশালা ও প্রশিক্ষনের উপর কাজ করছি। পাশাপশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, মসজিদের ইমাম, মন্দিরের ধর্মীয় গুরু, গীর্জার পুরোহিত এবং শ্রেণী-পেশার নাগরিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করছি।
তিনি বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য হলো নতুন প্রজন্মের মাঝে দেশপ্রেম তৈরী করা হয়। উগ্রবাদ জঙ্গিবাদ এবং সহিংসতা থেকে নিজেকে বিরত রাখা। পাশাপাশি শ্রেণী-পেশার নাগরিককে প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন, সর্বমহলে যোগাযোগ বাড়ানো, আত্মবিশ্লেষণ তৈরী, নিজেকে জানা, মানবিক গুনাবলী অর্জন করা, আত্মবিশ^াস সৃষ্টি করা, প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়া ও উদ্যোগী হওয়া।
খালেদা বেগম বলেন, আমাদের দেশে বিভিন্ন গোষ্ঠীর বিভিন্ন ধর্ম, বর্ণ, জাতি ও পেশার মানুষের বসবাস। সব মানুষের এই বৈচিত্র্যকে গ্রহণ করে সম্প্রীতি বজায় রেখে একসঙ্গে বসবাস করা অনেক ক্ষেত্রেই সম্ভব হচ্ছে না। পারিবারিক বন্ধন শিথিল হয়ে যাচ্ছে। প্যারেন্টিংয়ের ধরনে আসছে পরিবর্তন। ছোটবেলা থেকে আমাদের সম্প্রীতি শেখানো হচ্ছে না। তাই আমাদের পরিবারে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সর্বোপরি চিন্তাচেতনার মধ্যে সামাজিক সম্প্রীতির ধারণা তৈরি করতে হবে।
সহিংস উগ্রবাদ বিস্তারে তরুণসমাজকে টার্গেট করা হচ্ছে। আর সে জন্যই আমরা তরুণ প্রজন্মকে নিয়ে বেশি কাজ করছি এবং এ ধরনের সমস্যা থেকে উত্তরণের চেষ্টা করছি।
ইপসার হেড অব রিজিওনাল খালেদা বেগম আরও বলেন, নতুন প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর আগামী নিশ্চিতে তাদের দক্ষতা উন্নয়ন তরান্বিত করতে হবে। পাশাপাশি তাদেরকে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত করে বিপদগামীতা থেকে নিজেকে রক্ষা করতে হবে। এসব কার্যক্রমে সর্বমহলে সচেতনতা বাড়াতে সাংবাদিকদের ভুমিকা বেশি। আশাকরি সাংবাদিক সমাজ ভালো কাজের সঙ্গে পাশে থাকবেন। লেখনীর মাধ্যমে উগ্রবাদ ও সহিংসতার বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন বিকশিত করবেন।
অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় চকরিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক জাকের উল্লাহ চকোরী, এমআর মাহমুদ, রফিক আহমদ, এএম ওমর আলী, ইকবাল ফারুক, এম জিয়াবুল হক, মিজবাউল হক, মোহাম্মদ উল্লাহ, আবদুল মজিদ, জিয়াউদ্দিন ফারুক, এম মনছুর আলম, বাপ্পী শাহরিয়ার, জহিরুল আলম সাগর, জামাল হোছাইন, এমএস হান্নান শাহ, মো.নিজাম উদ্দিন, মনসুর মহসিন, অলিউল্লাহ রনী, সাঈদী আকবর ফয়সাল, আবদুল করিম প্রমুখ।
প্রকল্পের কার্যক্রম নিয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে আলোকপাত করেন সিভিক প্রকল্পের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর নাজমুল বারাত রনি, সিভিক প্রকল্পের ব্যবস্থাপক মো.রাজেল, প্রকল্পের কর্মকর্তা মো.জুবাইদ ও এখলাচুর রহমান প্রমুখ। ##

-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-